৫ টাকায় রোগী দেখতেন, করোনা কেড়ে নিল তার প্রাণ

দুস্থ রোগীদের চিকিৎসায় ফি নিতেন মাত্র পাঁচ টাকা। এবার প্রাণঘা'তী করো’নাভাইরাস নিল তার প্রাণ। পশ্চিমব'ঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনা জে'লার নৈহাটির বিধান রায় নামে পরিচিত চিকিৎসক হিরন্ময় ভট্টাচার্য (৫৭) করো’নায় মা'রা গেছেন।

তীব্র শ্বা'সকষ্ট নিয়ে গত শনিবার রাতে কলকাতার বেলঘরিয়ার একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন গরিবের এই ডাক্তার। কয়েকদিন ধরেই জ্বর ছিল তার। সোমবার রাত সাড়ে ১০টায় পরপর দুবার হার্ট অ্যাট্যাক হওয়ার ধাক্কা সামলাতে পারেননি এই চিকিৎসক।

পাঁচ টাকার ডাক্তার হিসেবে নৈহাটির পাশাপাশি গোটা ব্যারাকপুর মহকুমায় পরিচিত ছিলেন তিনি। স্বল্প ওষুধ দিয়ে রোগী সুস্থ করতেন বলে তাকে স্থানীয় বাসিন্দারা নৈহাটির ‘বিধান রায়’ বলতেন।

মূলত বক্ষবিশেষজ্ঞ হলেও সাধারণ ফিজিশিয়ান ও শিশু চিকিৎসাতেও তার সুনাম ছিল। লকডাউন হওয়ার পর কোভিডের ভয়ে যখন কেউ রোগী দেখেননি তখনও তিনি নিয়মিত চেম্বার করতেন। এই অতিমা'রির সময় একজন রোগীকেও ফিরিয়ে দেননি।

১৯৭৮ সালে মাধ্যমিক পাস করা হিরন্ময় আইএমএ রাজ্য শাখার একাধিক গু'রুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন। তার মৃ'ত্যুতে পশ্চিমব'ঙ্গের চিকিৎসক মহলেও গভীর শোকের ছায়া নেমে আসে। এ নিয়ে রাজ্যে করো’না আ'ক্রা'ন্ত হয়ে বেশ কয়েকজন চিকিৎসক প্রাণ হারালেন।

কয়েকদিন আগেই ব্যারাকপুর মহকুমা'র শ্যামনগরে প্রদীপ কুমা'র ভট্টাচার্য নামে আরেক জনপ্রিয় চিকিৎসক করো’না আ'ক্রা'ন্ত হয়ে মা'র যান। তিনিও গরিবের ডাক্তার হিসেবে পরিচিত ছিলেন।